আলোচিত

পলাশে ‘পছন্দের জমি বায়না করায় ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে মাথা ফাটিয়েছে’ এএসপি!

বার্তাবাহক ডেস্ক : এএসপি জ্যোতির্ময় সাহা প্রথমে তাঁর বাড়িতে আটকে রেখে আমাকে গালিগালাজ শুরু করেন। একপর্যায়ে আমাকে চড়-থাপ্পড় মারেন। পে বলেন ‘আমি যে সম্পত্তি কেনার জন্য ঘুরছি- তুই সেই সম্পত্তি বায়না করার সাহস পাইলি কই? তোর এত টাকা আসলো কোথা থেকে? কোথায় পেলি সেই সাহস?’ একপর্যায়ে আমি অজ্ঞান হয়ে যাই। এরপর জ্ঞান ফিরলে দেখি হাসপাতালে ভর্তি।

এভাবেই বলছিলেন নরসিংদীর পলাশ বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী মোরশেদ আহম্মেদ (৪০)।

শনিবার দুপুরে নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল পৌর এলাকার পলাশ বাজার গ্রামে এএসপির নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নরসিংদীর পলাশে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে ব্যবসায়ী মোরশেদ আহম্মেদকে তুলে নিয়ে মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দেয়ার এ অভিযোগ উঠেছে ঢাকার মোহাম্মদপুর জোনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) জ্যোতির্ময় সাহার (অপু) বিরুদ্ধে।

পরে গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। আহত মোরশেদের মাথায় বেশ কয়েকটি সেলাই দেয়া হয়েছে বলে জানান চিকিৎসক। মোরশেদ পলাশ বাজারের একজন কাপড় ব্যবসায়ী।

ভুক্তভোগী মোরশেদ বলেন, ‘গত ১৫ দিন আগে পলাশের সাবেক চেয়ারম্যান ইসলামের স্ত্রী মরিয়ম বেগমের কাছ থেকে পলাশ বাজার এলাকায় সাড়ে ৬ শতাংশ সম্পত্তি ৪২ লাখ টাকায় কেনার কথাবার্তা হয়। পরে দুই ধাপে ২০ লাখ টাকা বায়নাও করা হয়। আগামী এক মাসের মধ্যে পুরো টাকা পরিশোধ করে ওই জমি আমার নামে সাব-কবলা দলিলে রেজিস্ট্রির কথা রয়েছে। হঠাৎ আমার দোকানে লোক পাঠিয়ে এএসপি জ্যোতির্ময় সাহার বাড়িতে যাওয়ার কথা বলেন। সেখানে যাওয়ার পর প্রথমেই এএসপি আমাকে গালিগালাজ শুরু করেন। একপর্যায়ে আমাকে চড়-থাপ্পড় মারেন। ওই সময় ওনার রুমে থাকা জাকির ও শাহিন নামে দুজন আমাকে লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ি পেটানো শুরু করে।’

এসময় এএসপি বলন, তোর এতো বড় সাহস, আমি যে সম্পত্তি কেনার জন্য ঘুরছি- তুই সেই সম্পত্তি বায়না করার সাহস পাইলি কই? তোর এত টাকা আসলো কোথা থেকে? কোথায় পেলি সেই সাহস? একপর্যায়ে আমি অজ্ঞান হয়ে যাই। এরপর জ্ঞান ফিরলে দেখি হাসপাতালে ভর্তি।

মোরশেদের মামা আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ টিটু মোল্লা জানান, মোরশেদকে এএসপি জ্যোতির্ময় সাহার বাড়িতে আটকে রেখে মারধর করছে এমন খবর পেয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে অজ্ঞান অবস্থায় ওই বাড়ি থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসি। বিষয়টি থানা পুলিশকে অবগত করা হয়েছে। আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নরসিংদীর এসপিকেও অবগত করেছি।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য এএসপি জ্যোতির্ময় সাহা অপুর ব্যক্তিগত মুঠোফোনে কল দিলে তিনি তা রিসিভ করেননি।

এ ব্যাপারে পলাশ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দিন জানান, পলাশ বাজারের এক ব্যবসায়ীকে পেটানোর খবর পেয়ে হাসপাতালে থানা পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সূত্র: জাগোনিউজ

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এটাও পড়ুন

Close
Close