আন্তর্জাতিক

করোনায় লিবিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহমুদ জিবরিলর মূত্যু

আন্তর্জাতিক বার্তা : লিবিয়ার দীর্ঘদিনের শাসক মুয়াম্মার গাদ্দাফিকে উৎখাত করা সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহমুদ জিবরিল করোনাভাইরাসের কাছে হার মেনেছেন। ৬৮ বছর বয়সী সাবেক সরকার প্রধানের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে তার দল ন্যাশনাল ফোর্সেস অ্যালাইয়েন্স (এনএফএ)।

২০১১ সালে গাদ্দাফিকে সরিয়ে দেশের দায়িত্ব নিয়ে পরের বছর প্রতিষ্ঠা করেন এনএফএ। গত দুই সপ্তাহ জিবরিল হাসপাতালেই ছিলেন জানান দলের সেক্রেটারি খালেদ আল মিরমি। ২১ মার্চ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কাইরোর গানজোরি স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তি হন। তিন দিন পর তার করোনা ধরা পড়ার কথা বলেছেন হাসপাতাল পরিচালক হিশাম ওয়াগদি।

স্থানীয় সময় দুপুর ২টায় এএফপিকে ওয়াগদি বলেছেন, ‘গতকালের আগের দিনও তিনি সেরে উঠছিলেন। কিন্তু আবারো অসুস্থ হয়ে পড়েন।’

২০১১ সালে বিপ্লবে যোগ দেওয়ার আগে গাদ্দাফি সরকারের অর্থনৈতিক উপদেষ্টা ছিলেন জিবরিল। বিদ্রোহী গ্রুপ জাতীয় অন্তর্বর্তী পরিষদের (এনটিসি) প্রধান ছিলেন। গাদ্দাফি সরকার উৎখাতে ও তাকে হত্যায় ন্যাটোকে সমর্থন দেয় তার অন্তর্বর্তীকালীন সরকার।

পরের বছর চার দশকে প্রথম স্বতন্ত্র নির্বাচন হয় লিবিয়ায়। তার আগে ৭ মাসের জন্য জিবরিল অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান ছিলেন দেশের। নির্বাচনে তার দল ভোটে জিতলেও আইনসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনে ব্যর্থ হয়। তাতে মুস্তাফা আবুশাগুরের কাছে হেরে যান। পরের বছর দেশে সহিংসতা ও বিশৃঙ্খলা বেড়ে চললে লিবিয়া বিদেশে চলে যান। সম্প্রতি বেশির ভাগ সময় মিশরেই ছিলেন।

জিবরিলের মৃত্যুর আগে লিবিয়ার ত্রিপোলির আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি সরকার করোনায় ১৮ জনের আক্রান্তের খবর জানায়। হাসপাতাল পরিচালক ওয়াগদি বলেন, শুরু থেকে নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটে (আইসিইউ) ছিলেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী। কয়েক দিনের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরার কথাও ছিল। কিন্তু পারেননি হাসপাতাল ছাড়তে। চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close