বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের দ্বিতীয় বার্ষিকী

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বার্তা : বাংলাদেশের প্রথম কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১ উৎক্ষেপণের দ্বিতীয় বার্ষিকী আজ মঙ্গলবার (১২ মে)। ২০১৮ সালের ১২ মে যুক্তরাষ্ট্রের উৎক্ষেপণ কেন্দ্র থেকে এই উপগ্রহটি উৎক্ষেপণ করা হয়। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট (বিএস-১) দেশের সবগুলো বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলকেই সম্প্রচার সুবিধা দিচ্ছে। পাশাপাশি বিশেষত প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিশেষ আগ্রহের কারণে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি)-এর সম্প্রচার সুবিধা এপ্রিল থেকে মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকার দেশগুলোতে পৌঁছে দিচ্ছে।

গাজীপুরের তেলিপাড়া এলাকায় পাঁচ একর জমির ওপর বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট–১–এর গ্রাউন্ড স্টেশন। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নিয়ন্ত্রণ করা হয় গাজীপুরের গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে।

বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএসসিএল) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারি পরিস্থিতির কারণে যদিও আমরা দিবসটি উদযাপন করছি না। তবে বিসিএসসিএল টিভি সম্প্রচার শিল্পের উন্নতির জন্য কিছু বিষয় নিয়ে কাজ করছে। আগামী ২-৩ মাসের মধ্যে দেশের সবগুলো ক্যাবল অপারেটরকে তাদের সব গ্রাহকের কাছে সেট টপ বক্স (এসটিবি) বিতরণ বাধ্যতামূলক করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘বিসিএসসিএলের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় রয়েছে, তাই দ্বিতীয় স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ প্রক্রিয়াটি এগিয়ে নেওয়ার জন্য পরামর্শক নিয়োগ করা হয়েছে। তবে করোনার কারণে সেই কাজ আপাতত বন্ধ রয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘গত ১০ এপ্রিল, থাই উপগ্রহ সিরিজ থাইকোম-৬ এর সহযোগিতায় বিএস-১ বিটিভির উপগ্রহ ভিত্তিক শাখা বিটিভি ওয়ার্ল্ডের মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকার দেশগুলোতে অনুষ্ঠান সম্প্রচারের ব্যবস্থা করেছে। প্রাথমিকভাবে এটি পরীক্ষামূলক। বিটিভি ওয়ার্ল্ডের সম্প্রচারের ফলাফলের ভিত্তিতে আমরা মধ্যপ্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা এবং অন্যান্য অঞ্চলের জন্য দেশের অন্যান্য বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল চালুর প্রক্রিয়া শুরু করবো।’

তিনি জানান, দেশের সব টিভি চ্যানেল এখন বিএস-১ পরিষেবার মাধ্যমে সম্প্রচার কার্যক্রম চালাচ্ছে। এছাড়াও, দেশে নিরবচ্ছিন্ন ও সুরক্ষিত ব্যাংকিং পরিষেবা নিশ্চিত করতে সবগুলো ব্যাংকের এটিএম-এর মধ্যে সংযোগ স্থাপনের জন্যও বিএস-১ কাজ করছে।

গাজীপুরের তেলিপাড়া এলাকায় পাঁচ একর জমির ওপর বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট–১–এর গ্রাউন্ড স্টেশন। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ নিয়ন্ত্রণ করা হয় গাজীপুরের গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে। এখানে রয়েছে গ্রাউন্ড কন্ট্রোল স্টেশন। বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা হয় রাঙামাটির বেতবুনিয়া গ্রাউন্ড স্টেশন। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে এই স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ইন্টারনেট ও টেলিযোগাযোগ সেবার সম্প্রসারণ করা সম্ভব হয়েছে। দুর্যোগ পরিস্থিতি মোকাবিলা ও ব্যবস্থাপনায় নতুন মাত্রা এসেছে। মহাকাশে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের অবস্থান ১১৯ দশমিক ১ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমাংশে। এই কক্ষপথ থেকে বাংলাদেশ ছাড়াও সার্কভুক্ত সব দেশ, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, মিয়ানমার, তাজিকিস্তান, কিরগিজস্তান, উজবেকিস্তান, তুর্কমিনিস্তান ও কাজাখস্তানের কিছু অংশ এই স্যাটেলাইটের আওতায় রয়েছে।

 

সূত্র: বাসস

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এটাও পড়ুন

Close
Close