গাজীপুরসারাদেশ

কোভিড-১৯ : শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেলের আইসোলেশনে এক রোগীর মৃত্যু

বার্তাবাহক ডেস্ক : গাজীপুর কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে জ্বর, কাশি, শ্বাসকষ্টসহ করোনাভাইরাসে সংক্রমিতের উপসর্গ নিয়ে ভর্তি এক ব্যক্তি (৫০) মারা গেছেন। হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রথম রোগীর মৃত্যুর ঘটনা এটি।

বৃহস্পতিবার (৪ জুন) সন্ধা ৭ টার দিকে তিনি মারা গেছেন।

এছাড়াও কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এ পর্যন্ত দুই রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

সত্যতা নিশ্চিত করেছেন শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা: মো: খলিলুর রহমান।

মৃত্ ব্যক্তি শ্রীপুর উপজেলার প্রহলাদপুর মাঝিবাড়ি এলাকার বাসিন্দা।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, জ্বর-কাশি-শ্বাসকষ্টসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে ওই ব্যক্তিকে গত ২ জুন (মঙ্গলবার) রাত ১১ টার দিকে হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখানে ভর্তির এক দিন পর বৃহস্পতিবার (৪ জুন) সন্ধা ৭ টার দিকে তিনি মারা যান। হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে প্রথম রোগীর মৃত্যুর ঘটনা এটি। এর আগে গত বুধবার (৩ জুন) রাত সাড়ে ১১ টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কোভিড-১৯ শনাক্ত এক শিক্ষানুরাগী ও সমাজ সেবকের (৬০) মৃত্যু হয়েছে। তাঁর বাড়ি কোনাবাড়ির দেউলিয়া বাড়ি এলাকায়’। এছাড়া গত ২৩ মে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কোভিড-১৯ শনাক্ত প্রথম এক রোগীর (৫০) মৃত্যু হয়েছিল। তাঁর বাড়ি কালিয়াকৈর উপজেলার শফিপুর এলাকায়।

শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা: মো: খলিলুর রহমান, ’ওই ব্যক্তি করোনাভাইরাসে সংক্রমিতের উপসর্গ নিয়ে গত ২ জুন হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধা ৭ টার দিকে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। করোনা পরীক্ষার জন্য ইতিমধ্যেই তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মেনে লাশ দাফন করা হবে’।

তিনি আরো বলেন, ‘আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় প্রথম রোগীর মৃত্যুর ঘটনা এটি। এছাড়াও এ পর্যন্ত কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন দুই রোগী। বর্তমানে কোভিড-১৯ শনাক্ত ৩৫ জন রোগী এবং করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশন ইউনিটে আরও ৮ জন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন’।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close