খেলাধুলা

পুলিশের গুলিতে মেক্সিকোয় তরুণ ফুটবলারের মৃত্যু

খেলাধুলার বার্তা : এবার পুলিশের গুলিতে প্রাণ গেল ১৬ বছর বয়সী মেক্সিকোর এক সম্ভাবনাময়ী তরুণ ফুটবলারের। পুলিশের গুলিতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারায় মার্কিনবংশোদ্ভূত আলেকজান্ডার মার্টেনেজ।

চলতি মাসের শুরুতে মেক্সিকোর পশ্চিম জালিস্কো রাজ্যে নির্মাণকর্মী জিওভান্নি ল্যাপেজ (৩৩) পুলিশ হেফাজতে মারা যায়। রাষ্ট্রীয় মানবাধিকার কমিশন বৃহস্পতিবার জানিয়েছে ল্যাপেজকে বিচারবহির্ভূত নির্যাতন করে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

পুলিশের এমন নির্মম হত্যাকাণ্ডে মেক্সিকোয় প্রতিবাদের ঝড় উঠে। ল্যাপেজ হত্যার ঘটনায় বিক্ষোভ চলাকালীন পুলিশ কিছু যুবককে মারধর করে তাদের অর্থ ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয়ার পাশাপাশি অপহরণ করে ভিসেন্টে কমালোট গ্রামে নিয়ে এলোপাথাড়ি গুলি করে। পুলিশের গুলিতেই ঘটনাস্থালেই মারা যায় আলেকজান্ডার মার্টেনেজ।

তবে আলেকজান্ডারের পরিবারের সদস্যরা বলছেন, মঙ্গলবার রাতে বন্ধুদের সঙ্গে একটি গ্যাস স্টেশন থেকে সোডা কিনতে বেরিয়েছিল সে। আলেকজান্ডার মোটরসাইকেলে ছিল পুলিশ এলোপাথাড়ি গুলিচালালে তার মাথায় আঘাত হানে, ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়। এতে তার ১৫ বছর বয়সী এক বন্ধুও আহত হয়।

আলেকজান্ডারের মা বলেছেন, আমার ছেলের অল্প বয়স, ওর ফুটবলার হওয়ার স্বপ্ন ছিল। ওরা আমার সব শেষ করে দিল। গুলিবিদ্ধ হওয়ার পরও বেশ কিছুক্ষণ আমার ছেলে রাস্তায় পড়েছিল। কেউ সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেনি।

ওয়াকাসার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী রুবান ভাসকনস্লোস বলেছেন, মোটরসাইকেলে থাকা নয়জন যুবককে সরাসরি গুলি চালানো হয়েছিল এবং আলেকজান্ডার যেহেতু সামনে ছিল, তাই সে তাৎক্ষণিক মারা যায়।

আলেকজান্ডার এবং তার বড় ভাই আলেকিস, দু’জনই যুক্তরাষ্ট্রেরউত্তর ক্যারোলিনায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা টিওডোরো মার্তনেজ ল্যান্ডস্কেপিংয়ের কাজ করতেন। তাদের একটি ছোট্ট ঘর রয়েছে। কিন্তু কয়েক বছর আগে টিওডোরো মার্তনেজ স্ত্রী ভার্জিনিয়া গমেজকে ছেড়ে দিলে দুই ছেলেকে নিয়ে ২০০৮ সালে মেক্সিকোতে ফিরে আসেন ভার্জিনিয়া গমেজ।

সেই সময়ে গমেজ ভেবেছিলেন,আমেরিকার চেয়ে নিজের গ্রামের বাড়ি মেক্সিকোরজীবন নিরাপদ হবে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে মেক্সিকোয় এসেও আদরের সন্তানের নিরাপত্তা দিতে পারেননি গমেজ।

বৃহস্পতিবার ভিসেন্টের কমলোটের গ্রামে জানাজা শেষে আলেকজান্ডারকে দাফন করা হয়। কিছুদিন আগে স্থানীয় একটি টুর্নামেন্টে মেক্সিকোর ভেরাক্রুজ ক্লাবের হয়ে খেলা আলেকজান্ডার জয়সূচক একটি গোল করেছিলেন। তার এমন করুণ পরিণতির পর সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই গোলের ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায়। অনেকেই বলছেন, এমন সম্ভাবনাময়ী একজন ফুটবলারের জীবন শেষ করে দিল পুলিশ।

মেক্সিকোর ওয়াক্সেকা রাজ্যের গভর্নর আলেসান্দ্রো মুরাদ জানিয়েছেন, এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। ইতিমধ্যে এক পুলিশ কর্মীকে আটক করা হয়েছে।

 

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এটাও পড়ুন

Close
Close