আলোচিতইসলামজাতীয়ধর্ম

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে ঢাকা ও চট্টগ্রামে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা

বার্তাবাহক ডেস্ক : পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন শহরে শোভাযাত্রা ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। দিনটি উপলক্ষে মিলাদ মাহফিল, আলোচনা সভা ও কোরআন খতমসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজন পালন করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশনসহ বিভিন্ন ধর্মীয় ও সামাজিক প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক দল, মসজিদ ও মাদরাসা।

শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) সকাল ১০টায় রাজধানীর রমনা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ মিলনায়তন প্রাঙ্গন থেকে জশনে জুলুস শোভাযাত্রা বের হয়ে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। শোভাযাত্রার আয়োজন করে আন্জুমানে রহমানিয়া মইনিয়া মাইজভান্ডারীয়া।

জশনে জুলুস শেষে রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের আন্তর্জাতিক শান্তি মহাসমাবেশে করছে আঞ্জুমানে রহমানিয়ার মইনীয়া মাইজভাণ্ডারীয়া। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

সমাবেশের সভাপতিত্বে করেন মাইজভান্ডারি দরবার শরীফের প্রধান মাওলানা সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী ওয়াল হোসাইনী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। সেই ইসলাম ধর্ম প্রচারে, মানব জাতির কল্যাণে আল্লাহ রাসুলকে (সা.) তার দূত হিসেবে আমাদের মধ্যে পাঠান। আমাদের সবার কাছে রাসুলের জীবন শিক্ষণীয়।

তিনি বলেন, মহানবী অন্য ধর্মকে শ্রদ্ধা করতেন এবং তার অনুসারীদেরও অন্য ধর্ম বা ধর্মাবলম্বীদের অবমাননা করতে মানা করেছেন। কেননা কোন ধর্মের অনুসারিরাই তাদের ধর্মীয় ব্যক্তিত্বের অবমাননা মেনে নিতে পারেন না।

সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ আল্-হাসানী বলেন, পৃথিবী থেকে অন্ধকার অনাচার ব্যভিচারসহ মানবতাবিরোধী অপরাধ দূর করতে আলোর মশাল নিয়ে শুভাগমন করেন মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)। তিনি পৃথিবীতে মানবিক সমাজ গড়ে তোলার জন্য কাজ করেছেন এবং সবাইকে আহ্বান জানিয়েছেন। পৃথিবীতে তার শুভাগমন মানবজাতির জন্য আল্লাহর বিশেষ নিয়ামত।

চট্টগ্রামে জসনে জুলুসে লাখো মানুষের সমাগম

এদিকে, বন্দরনগরী চট্টগ্রামের ষোলশহর জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন আলমগীর খানকাহ-এ-কাদেরিয়া সৈয়্যদিয়া তৈয়্যবিয়ার উদ্যোগে লাখো মানুষের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয়েছে ঐতিহ্যবাহী জশনে জুলুস। শুক্রবার সকাল সোয়া ৮টায় বের হওয়া জুলুসটি বিবিরহাট, মুরাদপুর হয়ে প্রধান সড়ক ধরে দুই নম্বর গেট, জিইসির মোড়, ওয়াসা পর্যন্ত যায়। এরপর একই সড়ক দিয়ে আবার সোয়া ৯টায় জুলুস জামেয়া মাঠে ফিরে আসে।

বৈশ্বিক মহামারী করোনা ও শুক্রবার জুমার নামাজের কারণে এবার জসনে জুলুসের রোডম্যাপ সংক্ষিপ্ত করা হয়।

জুলুসে নেতৃত্ব দেন আনজুমানের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মহসিন, সেক্রেটারি মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, গাউসিয়া কমিটির চেয়ারম্যান পেয়ার মোহাম্মদ, জামেয়ার অধ্যক্ষ মুফতি অছিউর রহমান আল কাদেরি প্রমুখ।

সম্প্রতি ফ্রান্সে বিশ্ব নবীর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন এবং ইসলামের বিরুদ্ধে ফরাসি প্রেসিডেন্টের অবমাননাকর উক্তির প্রতিবাদে সোচ্চার বিশ্বমুসলিম সম্প্রদায়ের নিকট এবারের ঈদে মিলাদুন্নবী দিবসটিতে অধিকতর ধর্মীয় আবেগ ও উচ্ছাসের বহিঃপ্রকাশ ঘটছে। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ বাংলাদেশেও বিশেষ গুরুত্বের সাথে পালিত হচ্ছে এ দিবসটি।

এ উপলক্ষে প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাংলাদেশে এ দিবসটি বরাবরের মতোই সরকারী ছুটির দিন ঘোষণা করা হয়েছে।

এ উপলক্ষে রাজধানীসহ দেশের সরকারি স্থাপনাগুলো আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে। তাছাড়া রাজপথের ধারে ও সড়কদ্বীপে পবিত্র কালেমা খচিত পতাকা ও জাতীয় পতাকা টানানো হয়েছে।

এদিকে, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) উদ্যোগে বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদে শুরু হয়েছে পক্ষকালব্যাপী অনুষ্ঠানমালা। বৃহস্পতিবার বাদ মাগরিব বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের পূর্ব সাহানে এ অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করা হয়।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এটাও পড়ুন

Close
Close