সারাদেশ

জন্ম নিবন্ধন নিশ্চিত হলে বাল্যবিবাহ বন্ধ নিশ্চিত হয়ে যাবে: প্রতিমন্ত্রী চুমকি

বার্তাবাহক ডেস্ক : মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি বলেছেন, ‘জন্ম নিবন্ধন নিশ্চিত হলে বাল্যবিবাহ বন্ধ নিশ্চিত হয়ে যাবে। ১৮ বছরের নিচে কোনও মেয়ে বা ছেলে যদি নিজের ইচ্ছায়ও বিয়ে করে, তাহলে তাদের জন্য শাস্তির বিধান রয়েছে। বাল্যবিয়ে নিরোধ আইন অমান্যকারী প্রত্যেকেরই শাস্তি পেতে হবে।’

বুধবার (১৭ অক্টোবর) সকালে গাজীপুর সদর উপজেলার বলদা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত শিশু মেলার প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘মেয়েদের বাল্যবিয়ে হলে তাদের লেখাপড়াটা বন্ধ হয়ে যায়। তারা বাচ্চা লালন-পালনের পূর্ণ জ্ঞান পাওয়ার আগেই মা হয়ে যায়। নতুন পরিবারের কাজ-কর্ম কিছুই করতে পারে না। প্রথমে ভালোবাসা দেখিয়ে বিয়ে করে নিয়ে যায়। পরে সংসারে সৃষ্টি হয় নানা অশান্তি। মহিলাদের যে নির্যাতনটা হয় সেটা বাল্য বিয়ের কারণেই বেশি হয়।’

gazipurkontho

চুমকি বলেন, ‘বর্তমান সরকার মা ও শিশুমৃত্যু রোধের জন্য ব্যাপক কাজ করে যাচ্ছে। এজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পুরস্কৃত হয়েছেন। আমরা শিশুর পুষ্টির জন্য ব্যবস্থা করে যাচ্ছি। আমরা শুধু শিশু নয় মায়েদের প্রতিও দৃষ্টি রাখছি। যাতে করে মায়েরা সুস্থ থাকতে পারে এবং তারা সুস্থ শিশু জন্ম দিতে পারে। মায়েদের আমরা লেক্টেটিং ভাতা দিচ্ছি, মাতৃত্ব ভাতা দিচ্ছি, আমরা তাদের ভিজিডি দিচ্ছি। আমরা ট্রেনিং সেন্টার স্থাপন করে মায়েদের জন্য বিভিন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ দিতে শুরু করেছি।’

তিনি বলেন, ‘আমার নির্বাচনি এলাকা কালীগঞ্জে নারীদের জন্য একটা মার্কেট করে দিতে যাচ্ছি। সেখানে নারীরা বেচাকেনা করবেন। মায়েরা ভালো থাকলে শিশুরা ভালো থাকবে। মায়ের মনে যদি দুঃখ থাকে, মায়ের হাতে যদি অর্থ না থাকে তাহলে তিনি শিশুর অনেক চাহিদা পূরণ করতে পারেন না। এর জন্য মাকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হতে হবে। শিক্ষা-দিক্ষায় নিজেকে তৈরি করতে হবে।’ প্রতিমন্ত্রী আগামী এক মাসের মধ্যে ৪০জন নারীকে টিনশেড বসত ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন এবং ১০জন নারীকে ১০টি টিনশেড বসত ঘরের চাবি হস্তান্তর করেন। ওই ইউনিয়নের ৭টি পূজা মণ্ডপে ২০ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তাও দেন তিনি।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রেবেকা সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গাজীপুর জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন, জেলা তথ্য অফিসার রাহাত হাসনাত, বাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান শুক্কুর, জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক জহিরুল ইসলাম প্রমুখ।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close