জাতীয়

প্রার্থিতা পেতে প্রথম দিনে নির্বাচন কমিশনে ৮২ জনের আপিল

বার্তাবাহক ডেস্ক : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্রে বৈধতা পেতে সাবেক সাবেক মন্ত্রী মীর নাছির, সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মওলা রনি, হিরো আলমসহ ৮২ প্রার্থী নির্বাচন কমিশনে আপিল করেছেন।

সোমবার (০৩ ডিসেম্বর) সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে আপিল গ্রহণ করা হয়। এদের মধ্যে একজন প্রার্থীর প্রার্থিতা নিয়েও আপিল করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিমান মন্ত্রী মীর নাছির উদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে আমরা মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। সরকারের চাপে রিটার্নিং কর্মকর্তা বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে। আপিলে প্রার্থিতা দেবে আশা করি।

পটুয়াখালী-৩ আসনের প্রার্থী গোলাম মওলা রনি বলেন, আমার মনোনয়ন পত্রে সামান্য ভুল ছিল। অতীতে এই ভুলের জন্য কারো মনোনয়ন বাতিল করা হয়নি। আমি আশা করছি আমারটাও বাতিল হবে না। নির্বাচন কমিশনের ন্যায় বিচারের মাধ্যমে আমি আমার প্রার্থিতা ফিরে পাব।

বগুড়া-৪ আসনের প্রার্থী হিরো আলম বলেন, ‘রাজারা কখনো চায় না, প্রজারা রাজা হোক। তাই এই দেশের মন্ত্রী এমপিরা চায় না সাধারণ কোনো মানুষ এমপি মন্ত্রী হোক। এরা সবসময় চায় তাদের পরিবারের লোকজনই এমপি মন্ত্রী হোক। তাই আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে এবং প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছে।’

প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ার জন্য শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবেন কিনা এমন প্রশ্নে হিরো আলম বলেন, ‘আপনারা জানেন আমি জিরো থেকে হিরো। আর এই জায়গায় এসেছি আমি লড়াই করে। শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যাব পাই বা না পাই। বীরের মতো লড়ব মাথা নত করব না।’

অন্য আপিলকারিদের মধ্যে রয়েছেন ঢাকা-১ আসনের খন্দকার আবু আশফাক, চাপাইনবাবগঞ্জ-১ থেকে নবাব মোহাম্মদ শামছুল হুদা, বগুড়া-৭ থেকে খোরশেদ মিলটন,খাগড়াছড়ি থেকে আব্দুল ওয়াদুদ ভূঁইয়া, ঝিনাইদাহ-১ থেকে আব্দুল ওয়াহাব, ঢাকা-২০ থেকে তমিজউদ্দিন, সাতক্ষীরা-২ থেকে মোহাম্মদ আফসার আলী, কিশোরগঞ্জ-২থেকে মো. আখতারুজ্জামান, চাপাইনবাবগঞ্জ-২ মো. তৈয়ব আলী, মাদারীপুর-৩ থেকে মো. আব্দুল খালেক, দিনাজপুর-২ থেকে মোকারম হোসেন, ঝিনাইদাহ-২অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট আব্দুল মজিদ, ঢাকা-১ খন্দকার আবু আশফাক, দিনাজপুর-৩ থেকে সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম, জামালপুর-৪ থেকে ফরিদুল কবিরতালুকদার,পটুয়াখালী-৩ থেকে মো. শাহাজাহান, পটুয়াখালী-১ থেকে মো. সুমন সন্যামাত, দিনাজপুর-১ থেকে পারভেজ হোসেন, মাদারীপুর-১ থেকে জহিরুল ইসলাম মিন্ট,সিলেট-৩ থেকে কাইয়ুম চৌধুরী, ঠাকুগাঁও-৩ থেকে এসএম খলিলুর রহমান ও জয়পুরট-১ থেকে মো. ফজলুর রহমান প্রমুখ।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, সংক্ষুব্ধরা সোমবার (০৩ ডিসেম্বর) থেকে বুধবারের মধ্যে ইসিতে অভিযোগ করতে পারবেন। পরে তাদের আবেদনের ওপর ৬ থেকে ৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত শুনানি করে সিদ্ধান্ত দেবে ইসি।

এ বিষয়ে ইসি সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ বলেন, নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী প্রার্থীদের আবেদন যাচাই-বাছাই করে রিটার্নিং কমকর্তারা বৈধ মনোনয়পত্র গ্রহণ করেছেন। আর সারাদেশে মনোনয়ন বাতিল হয়েছে ৭৮৬টি। যাদের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে তারা ৩, ৪ ও ৫ ডিসেম্বর কমিশনে আপিল করতে পারবেন। ৬ থেকে ৮ ডিসেম্বর তাদের আপিলের শুনানি করা হবে।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close