রাজনীতি

‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী দমনে হার্ডলাইনে আওয়ামী লীগ

বার্তাবাহক ডেস্ক : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিভিন্ন আসনে দলের স্বতন্ত্র বা বিদ্রোহী প্রার্থীদের বিষয়ে কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। আজ থেকেই তাদের কাছে দলের সভাপতি শেখ হাসিনার বার্তা পৌঁছানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ও বিএম মোজাম্মেল হককে।

সোমবার রাতে মনোনয়নবঞ্চিত এই চার কেন্দ্রীয় নেতাকে গণভবনে ডেকে দিকনির্দেশনাও দিয়েছেন দলের সভাপতি।

জানা গেছে, দলীয় বা জোটের দেওয়া প্রার্থীর বাইরে যারা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন, ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে আজ তাদের ফোন করবেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। তফসিল অনুযায়ী ৯ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন।

তার আগেই ‘বিদ্রোহী’দের কাছে তারা দলীয় নির্দেশনার কথা জানাবেন। প্রথমে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আহ্বান জানাবেন। এর পরও যদি কেউ দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশ নেন, তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে শেখ হাসিনার পক্ষে বার্তা দেবেন এই চার নেতা।

আওয়ামী লীগের এক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিদ্রোহী প্রার্থীদের মনোনয়পত্র প্রত্যাহার করে নিতে হবে; এ বিষয়ে দলের নির্দেশনা তাদের কাছে আমরা পৌঁছে দেব। আমরা আশা করছি এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী থাকবে না।’

গত রোববার মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের দিন আওয়ামী লীগের অধিকাংশ শক্তিশালী ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল করে দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসাররা। এর ফলে বিদ্রোহী দমনের কাজ অনেকটাই সহজ হয়ে গেছে দলটির জন্য। তবে জোটের জন্য ছেড়ে দেওয়া কিছু আসনে কৌশলগত কারণে ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী রাখার ব্যাপারে আওয়ামী লীগ শৈথিল্য দেখাবে। এ ছাড়া বাকি বিদ্রোহীদের ব্যাপারে হার্ডলাইনে যাচ্ছে ক্ষমতাসীনরা।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এটাও পড়ুন

Close
Close