বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

এবার অনলাইনে অর্ডার ডেলিভারি দেবে ড্রোন!

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বার্তা : কাজ কমিয়ে দিন দিন প্রযুক্তির কাঁধে ভর বাড়িয়ে দিচ্ছে মানুষ। প্রযুক্তিও তাতে খুব সায় দিয়ে আসছে। কেননা, এতোদিন ঘরে বসে অনলাইনে অর্ডার করলে ডেলাভারি ম্যান এসে খাবারসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র দিয়ে যেতো। আর এখন ড্রোন বাসায় এসে সেই ডেলিভারি দিয়ে যাবে, কতো এগিয়ে গেছে প্রযুক্তি দুনিয়া!

প্রযুক্তির মাধ্যমে অর্ডার দেওয়া, এরপর বাকি অর্ধেক কাজ ছিল মানুষের। যা কাটিয়ে এখন পুরোটাই হয়ে যাচ্ছে প্রযুক্তিনির্ভর।

ভারতের দিল্লির বিশ্বব্যাপী রেস্তোরাঁ বিষয়ক তথ্য সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান জোম্যাটো এবার ভাবছে অর্ডার নেওয়ার পাশাপাশি ডেলিভারিটাও প্রযুক্তির মাধ্যমে খুব সহজে দিতে। আর তা থেকেই তাদের মাথায় এসেছে ড্রোন দিয়ে ডেলিভারি করা সহজ হবে।

জোম্যাটো ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে, উত্তরপ্রদেশের লখনউয়ের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান টেকঈগলকে তাদের আওতায় নিয়েছে। এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় জিনিসপত্র পৌঁছে দিতে ড্রোনের ব্যবহার বিষয়ে ওই টেকপ্রতিষ্ঠানকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করছে জোম্যাটো।

বিবৃতিতে জোম্যাটো বলেছে, হাইব্রিড মাল্টি-রটার ড্রোনের ব্যবহার একটি ‘হাব-টু-হাব’ ডেলিভারি নেটওয়ার্ক তৈরিতে সাহায্য করবে।

এদিকে, জোম্যাটোর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) দীপিন্দার গয়াল জানিয়েছেন, অর্ডার দেওয়া খাবার ড্রোনে ডেলিভারি করার দিন যে আসছে, তা অস্বীকার করার কোনো উপায় নেই। তাই আমাদের এই পদক্ষেপ ওই দিনের দিকেই এগিয়ে যাওয়া।

যদিও টেকঈগলকে অধিগ্রহণের আর্থিক লেনদেনের কোনো তথ্য জোম্যাটো এখনও জানায়নি।

জোম্যাটো এও বলছে, প্রতিষ্ঠানটির ৬৫ শতাংশ মুনাফা আসে অ্যাপসের মাধ্যমে বিভিন্ন হোটেল বা রেস্তোরাঁ থেকে খাবার ডেলিভারি দেওয়ার মাধ্যমে। এছাড়া ভারতের ১০০টি শহরের ৭৫ হাজারেরও বেশি রেস্তোরাঁর সঙ্গে জোম্যাটোর পার্টনারশিপ রয়েছে। সেইসঙ্গে লন্ডন, নিউইয়র্কসহ বিশ্বের ২৪টি দেশের ১০ হাজার শহরে এ প্রতিষ্ঠানের ডেলিভারি সেবা চালু রয়েছে।

ড্রোন উড়ে এসে কাস্টমারকে অ্যাপসের মাধ্যমে বা ভিন্নভাবে জানান দেবে, সে যে পণ্য নিয়ে পৌঁছে গেছে তার কাছে।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close