লাইফস্টাইল

প্রেমের ৭টি প্রকারভেদ: চিনে নিন আপনার সম্পর্কটি কেমন

লাইফস্টাইল ডেস্ক : ভালোবাসা আসলে কী? যুগে যুগে কালে কালে এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজে বেড়িয়েছে সকলেই। কিন্তু মিলেছে কী? মনোবিজ্ঞানীরাও নিজেদের মতো করে দিয়েছে ভালোবাসার ব্যাখ্যা। তেমনই একজন হচ্ছেন আমেরিকান মনোবিজ্ঞানী Robert Sternberg। ১৯৮০ সালে প্রথম তিনি ভালোবাসার ব্যাপারে নিজের ‘ট্রায়ানগুলার’ থিওরি প্রকাশ করেন। এই থিওরিতে তিনি প্রেমের সম্পর্কে ভাগ করে ফেলেন সাতটি ভাগে। আর সেই ভাগের ভিত্তি হিসেবে বেছে নেন তিনটি ব্যাপারকে। তিনি মনে করেন, একটি নিখুঁত সম্পর্কের মাঝে থাকে তিনটি মূল বিষয় থাকে। সেগুলো হলো আত্মার বন্ধন, প্যাশন ও প্রতিজ্ঞা।

কী কী ভাগে ভাগ করা যায় প্রেমের এই রঙিন সম্পর্ককে? চলুন তবে জেনে নিই।

মোহে অন্ধ

পরস্পরকে দেখেই ভালো লেগে যাওয়া বা শারীরিক সৌন্দর্যের ভিত্তিতে তৈরি হওয়া প্রেমগুলো মূলত মোহ। এই সময়ে দুজনে ভবিষ্যৎ নিয়ে তেমন একটা ভাবেন না, কেবল পরস্পরকে উপভোগ করে যান। তীব্র এই আকর্ষণ থেকে দীর্ঘ মেয়াদি সম্পর্ক হওয়া সম্ভব, তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তা হয় না।

পছন্দই কেবল

এই সম্পর্কগুলো কখনোই গভীর ভালোবাসা পর্যন্ত যায় না। এমন প্রেমে প্রত্যেকেই নিজের মত থাকে, পরস্পরকে পছন্দ করে, একই সঙ্গে সময় কাটানো উপভোগ করে। প্রায়ই প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হবার স্থানে এসে বা অন্য কারও কারণে সম্পর্ক ভেঙ্গে যায়।

শূন্য ভালোবাসা

দীর্ঘদিন প্রেম বা বিয়ের সম্পর্কে আবদ্ধ থাকার পর এমন একটা পর্যায় আসতে পারে। এমন ভালোবাসায় কেবল প্রতিজ্ঞাটুকুই থেকে যায়, প্যাশন বা আত্মার সম্পর্কটি মিলিয়ে যায়। এমন ক্ষেত্রে সম্পর্ক ভেঙে যাওয়াই শেষ পরিণতি।

গড়পড়তা সম্পর্ক

এমন সম্পর্ক প্রায়ই দীর্ঘমেয়াদি হয়ে থাকে। এমনকি জগতে অসংখ্য দম্পতির সম্পর্কটি এমনই। এমন সম্পর্কে দুজনই পরস্পরকে পছন্দ করেন, আকর্ষণবোধ করেন, বিয়ের মতো বন্ধনেও আবদ্ধ হন। তবে আত্মার গভীর বন্ধন সবক্ষেত্রে থাকে না। তাই সুখটাও সব ক্ষেত্রে নিশ্চিত নয়। সম্পর্ক কখনোই ভাঙবে না, এমনটাও বলা যায় না।

রোমান্টিক প্রেম

এই প্রেমগুলোতে প্যাশন থাকে, আকর্ষণ থাকে, পরস্পরের মাঝে থাকে গভীর আত্মার বন্ধন। কিন্তু মানুষ দুটি বিয়ে বা সংসারের মতো সম্পর্কে যেতে আগ্রহী থাকেন না। ফলে তীব্র ভালোবাসা থাকা সত্ত্বেও এমন প্রেম ব্যর্থ হতে পারে।

বন্ধুত্বই আসল

এই সম্পর্কগুলি হয় অনেক বেশি পরিণত। পরস্পরের মাঝে থাকে আত্মার বন্ধন, গভীর বোঝাপড়া, দীর্ঘমেয়াদি প্রতিজ্ঞা। কিন্তু প্যাশন বা পরস্পরের জন্যে পাগলামি সেখানে থাকে অনুপস্থিত। অনেক বছর প্রেম বা সংসার করার পর প্রেমের সম্পর্ক এদিকে মোড় নেয়। এমন যুগলরা প্রায়ই বাকি জীবন একসঙ্গে পার করে থাকেন।

আত্মার আত্মীয়

যখন কোন প্রেমের মাঝে তিনটি বিষয়ই উপস্থিত থাকে, তখন তা হয় সবচাইতে সেরা সম্পর্ক। পরস্পরের জন্যে তীব্র আবেগ ও প্রতিজ্ঞার পাশাপাশি এমন সম্পর্কে দুজনে হয়ে ওঠেন খুবই ভালো বন্ধু, বোঝাপড়া হয় চমৎকার। প্রেম থেকে সম্পর্কটি ক্রমশ হয়ে ওঠে সত্যিকারের ভালোবাসা।

জীবনের গতিপথে সম্পর্কের পরিবর্তন খুবই স্বাভাবিক। নিছক মোহ থেকে একটি সম্পর্ক পরিণত হতে পারে গভীর ভালোবাসায়। অন্যদিকে গভীর ভালোবাসাও কালের গ্রাসে হয়ে পড়তে পারে শূন্য। তো প্রিয় পাঠক, আপনার সম্পর্কটি কী রকম?

সূত্র- ব্রাইট সাইড

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এটাও পড়ুন

Close
Close