সারাদেশ

ক্লু-লেস ‘দস্যুতা’ মামলা তদন্তে সফল পরিদর্শক রাজীব চক্রবর্তী পেলেন সম্মাননা

বার্তাবাহক ডেস্ক : গাজীপুরের কালীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রাজীব চক্রবর্তী ক্লু-লেস ‘দস্যুতা’ মামলার ঘটনা তদন্ত করে মালামাল উদ্ধার এবং আসামি গ্রেপ্তারে সফল হওয়ায় স্বীকৃতি হিসেবে সম্মাননা স্মারক সনদপত্র ও নগদ অর্থ লাভ করেছেন।

মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) ঢাকা রেঞ্জ কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে ঢাকা রেঞ্জের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন, (বিপিএম) (পিপিএম) আনুষ্ঠানিকভাবে রাজীব চক্রবর্তীর হাতে এ পুরষ্কার প্রদান করেন।

এ সময় অতিরিক্ত ডিআইজি (ডিআইজি পদে পদোন্নতি প্রাপ্ত) আবুল কালাম ছিদ্দিক, অতিরিক্ত ডিআইজি আনোয়ার হোসেন এবং গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার (পিপিএম) প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কালীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রাজীব চক্রবর্তী জানান, ক্লু-লেস ‘দস্যুতা’ মামলা তদন্ত করে লুট হওয়া মালামাল উদ্ধার এবং গাইবান্ধার নবীর, শিবপুরের মোমেন এবং পলাশ উপজেলার মামুনকে গ্রেপ্তার করলে তারা আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। ওই কাজের স্বীকৃতি হিসেবে সম্মাননা স্মারক সনদপত্র ও নগদ অর্থ প্রদান করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের ৫ ডিসেম্বর বুধবার দিবাগত রাতে কালীগঞ্জ উপজেলার উলুখোলায় দুই বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

ডাকাতরা স্বর্ণালঙ্কার, নগদ টাকাসহ বেশ কিছু দামি জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায় এবং ডাকাতদের চাপাতির আঘাতে গুরুত্বর আহত হয়ে এক ব্যবসায়িকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) ভর্তি করা হয়েছিল।

ওইদিন রাত ১টার দিকে ৩/৪ জনের মুখোশপড়া একটি সশস্ত্র ডাকাত দল বাড়ির কলাপসিপল গেইটের তালা কেটে ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে। ওই বাড়ির ইস্কান্দার সরকার (৫) ও ১ মাসের ইভার গলায় ছুড়ি ঠেকিয়ে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, ৩টি মোবাইল ফোন, ১টি ডিজিটাল ক্যামেরা লুট করে নিয়ে যায়। এ সময় বাধা দেওয়ায় ডাকাত দল তার মতিউর রহমানকে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে। পরে তাকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

অন্যদিকে একই এলাকার নগরভেলা গায়েনধারী এলাকায় ওই রাতেই জায়েদুল ইসলামে বাড়ির গ্রীল গেইট ও রুমের দরজা ভেঙে তিনজন ডাকাত ঘরে প্রবেশ করে। ডাকাতরা ঘরের সবাইকে বেঁধে রেখে সাড়ে ৭ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগত প্রায় এক লাখ টাকা লুটে নিয়ে যায়। এসময় ডাকাতরা বাড়ির ভাড়াটিয়াদেরকেও মাধরধর করে।

পরে (০৬ ডিসেম্বর) বৃহস্পতিবার রাতে জায়েদুল ইসলাম বাদী হয়ে দস্যূতার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন {মামলা নম্বর: ০৮(১২)১৮}।

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এটাও পড়ুন

Close
Close