আলোচিত

কালিয়াকৈরে ছাত্রীদের উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় শিক্ষককে মারধর

বার্তাবাহক ডেস্ক : গাজীপুরের কালিয়াকৈরে একটি মাদ্রাসার ছাত্রীদের উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ওই মাদ্রাসার এক ছাত্র ও শিক্ষককে মারধর করেছে বখাটেরা।

শনিবার সকালে এ ঘটনার সময় তিন বখাটেকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন এলাকাবাসী।

এ ঘটনায় মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও স্থানীয় ব্যক্তিরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

আটক ব্যক্তিরা হলো উপজেলার কোটবাড়ি এলাকার সেলিম হোসেনের ছেলে শাকিব হোসেন, একই এলাকার শফিকুল ইসলামের ছেলে পায়েল মিয়া ও পাশের পাইকপাড়া এলাকার আওয়াল হোসেনের ছেলে আশিকুর রহমান।

মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কালিয়াকৈর উপজেলার সাতকুড়া এলাকার সাতকুড়া সুফিনগর দাখিল মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে। প্রতিদিনের মতো ওই মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীদের ক্লাস চলছিল। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কয়েকজন ছাত্রী মাদ্রাসার টিউবওয়েলে পানি খেতে যায়। এ সময় চারজন বখাটে ওই মাদ্রাসার সীমানার ভেতরে ঢুকে ওই ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে। এ সময় মাদ্রাসার নবম শ্রেণির ছাত্র আমিনুর ইসলাম তাদের বাধা দিলে তাকে কয়েকটি থাপ্পড় দেয় বখাটেরা। মাদ্রাসার শিক্ষক আবদুল হক ওই ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত ও ছাত্রকে থাপ্পড়ের প্রতিবাদ করলে তাঁকেও মারধর করা হয়। পরে আহত শিক্ষককে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এ ঘটনার কথা এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে ধাওয়া দিয়ে শাকিব, পায়েল ও আশিকুর নামের তিন বখাটেকে আটক করেন স্থানীয় ব্যক্তিরা। এ সময় আরেক বখাটে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। দুপুরে আটক ব্যক্তিদের কালিয়াকৈর থানা-পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছেন এলাকাবাসী।

ওই মাদ্রাসার সুপার আবদুল মালেক আমজাদি জানান, ছাত্রীদের উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় মাদ্রাসার একজন ছাত্র ও এক শিক্ষককে মারধর করেছে বহিরাগত ওই বখাটেরা। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগের প্রস্তুতি চলছে।

কালিয়াকৈর থানাধীন ফুলবাড়িয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) জামাল উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

 

সূত্র: প্রথম আলো

আরও দেখুন

এরকম আরও খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এটাও পড়ুন

Close
Close